বাংলাদেশ



দেশদর্পণ ডেস্ক

২১ নভেম্বর ২০১৭, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ণ




সিনহার দুর্নীতির বিষয়ে অনুসন্ধান দুদকের বিষয় : আইনমন্ত্রী

দেশদর্পণ ডেস্ক :: আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার দুর্নীতির বিষয়ে অনুসন্ধান করা এবং অনুসন্ধানের জন্য তাকে বিদেশ থেকে ফিরিয়ে আনা হবে কি-না সেটা দুদকের বিষয়।’

তিনি রাজধানীর বিচার প্রশাসন ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে মঙ্গলবার বিচারকদের ৩৭তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ মন্তব্য করেন।

অাইনমন্ত্রী বলেন, ‘প্রথম কথা হচ্ছে, দুর্নীতি দমন কমিশন একটি স্বাধীন কমিশন। দুদক কী করবে সেটা তারা সিদ্ধান্ত নেবে। এখানে আমার কিছু বলার নেই। কার কাছ থেকে পরামর্শ নেবেন কার কাছ থেকে নেবেন না সেটা দুদক দেখবে। আমি জানি যে, দুদকের একটি আলাদা আইনজীবী প্যানেল আছে। তারাই সঠিক সিদ্ধান্ত দিতে পারবে তাকে ফিরিয়ে আনা ও অনুসন্ধানের বিষয়ে। আমি মনে করি সেই প্যানেলটি দুদককে সঠিকভাবে উপদেশ দিতে পারবে।’

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‌’আমার জানামতে রিভিউ শুনানিতে সাত বিচারপতি থাকতে হবে, সুপ্রিম কোর্ট রুলসে এমন কোনো কথা নেই।’

তিনি বলেন, ‌‌’এমন অনেক রিভিউ আছে যেখানে অনেকেই অবসরে গেছেন কিন্তু রিভিউ শুনানি হয়েছে। সো ফার এজ ইজ প্র্যাকটিকেবল, এ কথাটা আছে। তাছাড়া রিভিউ শুনানির জন্যই আপিল বিভাগে বিচারপতি প্রয়োজন তা না, বিচারপতি নিয়োগের প্রক্রিয়া কিছুদিনের মধ্যে শুরু হবে এবং নিয়োগ আপিল বিভাগে দেয়া হবে। চিন্তিত হয়ে যাওয়ার কোনো কারণ নেই।

সম্প্রতি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেছে, সাবেক প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো এসেছে সেগুলো তারা তাদের মতো করে অনুসন্ধান-তদন্ত করবে। আবার অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন, দুদক চাইলে তারা আইনি সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত।

বিচারক শৃঙ্খলাবিধি প্রণয়নের বিষয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘অধস্তন (নিম্ন) আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট নিয়ে আমি এতটুকু বলতে পারি, গত বৃহস্পতিবার আমরা বসেছিলাম এবং আমরা এ ব্যাপারে যে আলাপ-আলোচনা করেছি তাতে আমাদের যে ক্ষুদ্র মতভেদ ছিল সেটা দূর হয়েছে। সেদিন বলেছিলাম গেজেটের খসড়া রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে। রাষ্ট্রপতি যদি সেটিসফাইড হন, তিনি যদি অনুমোদন দেন তাহলে গেজেট পাবলিকেশনের আর বিলম্ব হবে না।’

‘পরিস্থিতি এখন হচ্ছে এরকম যে, আমরা আলোচনার মাধ্যমে যে ড্রাফটি এগ্রি করেছি সেটার ফাইনাল ড্রাফট করা হয়েছে এবং গতকাল (সোমবার) সেটা সুপ্রিম কোর্টে পাঠানো হয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট থেকে যে মুহূর্তে ফিরে আসবে আমি আইন মন্ত্রণালয় থেকে সেটা মাহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠিয়ে দেব।’

বেআ/আবে

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর