দেশজুড়ে



দেশদর্পণ ডেস্ক

৩১ মার্চ ২০১৮, ২:০৫ পূর্বাহ্ণ




হত্যার নৃশংসতা দেখে কনস্টেবলের মৃত্যু

দেশদর্পণ ডেস্ক :: বাকবিতণ্ডার জের ধরে ঘাস কাটার কাঁচি দিয়ে কুপিয়ে তৃতীয় শ্রেণির স্কুলছাত্রকে খুন করেছেন এক নারী। সেই খুনের বিভৎসতা দেখে হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে পুলিশের এক কনস্টেবলের।

শুক্রবার বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার দেউলী ইউনিয়নের বোয়ালমারি গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে।

নিহত ছাত্রের নাম শাকিবুল হাসান শাকিব(১১)। তার পিতার নাম হেলাল উদ্দিন। সে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ফাঁসিতলা মডেল কেজি স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র। তার হত্যাকারীর নাম শিউলি বেগম(৩৮)। সম্পর্কে তারা চাচি-ভাতিজা।

মৃত কনস্টেবলের নাম একরামুল হক (৪০)। তিনি মোকামতলা পুলিশের তদন্ত শাখায় কর্মরত ছিলেন। তার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায়।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিদ মাহমুদ খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘শাকিব আজ দুপুর দেড়টার দিকে তাদের বেগুন ক্ষেত থেকে গরুর জন্য ঘাস তুলছিল। এ সময় তার চাচি শিউলি বেগম সেখানে গিয়ে বিষয়টি নিয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে শাকিবের হাতে থাকা ঘাস কাটার কাঁচি কেড়ে নিয়ে সারা শরীর কুপিয়ে জখম করে। এতে ঘটনাস্থলেই শাকিব মারা যায়।’

ওসি জানান, বিষয়টি পাশের ক্ষেতে কাজ করা স্থানীয় বাসিন্দারা দেখতে পেয়ে শিউলি বেগমকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিউলীকে গ্রেপ্তার করেন। এ সময় শাকিবের মৃতদেহে আঘাতের বিভৎসতা দেখে মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কনস্টেবল একরামুল হক অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেখান থেকে পুলিশ ভ্যনের মাধ্যমে দ্রুত তাকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নেওয়া হয়। পরে সেখানেই তিনি মারা যান।

শাহিদ মাহমুদ আরও জানান, শাকিবের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর