খেলাধুলা



দেশদর্পণ ডেস্ক

২০ নভেম্বর ২০১৭, ২:২২ পূর্বাহ্ণ




স্বপ্ন দেখিয়েও হারলো সিলেট সিক্সার্স

ক্রীড়া প্রতিবেদক :: রংপুরের দুই বিষ্ফোরক ব্যাটসম্যান গতকাল ছন্দে ফিরলেন। ক্রিস গেইল ছক্কা ঝড় তুলে ৩৯ বলে করলেন অর্ধশতক। আরেক ওপেনার ব্রেন্ডম ম্যাককুলাম ২১ বলে দ্রুতগতির ৩৩ রান। দুজনের ঝড়ো শুরুর পরও রংপুরের সংগ্রহ ১৬৯ রান। যদিও হারার বৃত্তে থাকা সিলেটের জন্য তা-ই পাহাড়সম। এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে ২৫ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বসলে জয়ের চিন্তা বাতুলতা মাত্র। তবুও সিলেট একসময় জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছিল। সেই পরিস্থিতি তৈরি করেছিলেন অধিনায়ক নাসির হোসেন আইকন প্লেয়ার সাব্বির রহমানকে নিয়ে। এই দুইজনের ব্যাটিংকে যদি প্রতিপক্ষের বিশ্বসেরা হার্ড হিটারদের ইনিংসের সাথে তুলনা করা হয় তবে কাদের এগিয়ে রাখবেন? সিলেট-রংপুর ম্যাচে অন্তত এই দুই স্বদেশীকেই এগিয়ে রাখতেই হবে। আর স্বপ্নের কথা যে বললাম, সেটা পূরণও হয়ে যেতো। যদি না শেষ দিকে প্রতিপক্ষ অধিনায়ক মাশরাফির একটি ওভার সেই স্বপ্নকে অমন হাহাকারে পরিণত করে দিত।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে টস জয়ী সিলেট বেছে নেয় ফিল্ডিং। দুই ওপেনারের পর রংপুর রাইডার্সের পক্ষে মোহাম্মদ মিথুনের ২১ বলে ২ বাউন্ডারীসহ ২৫ এবং রবি বোপারার ঝড় তোলা ১২ বলের ২৮ রানের ইনিংস ছাড়া ১২ রান করা পেরেইরা কেবল মাত্র দুই অংকের ঘর ছুঁতে পেরেছিলেন। ফলে ঝড়ো গতিতে শুরু হলেও নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৬৯ রানের বেশি তুলতে পারেনি রাইডার্সরা। সিক্সার্সের পক্ষে আবুল হাসান রাজু বল হাতে ক্রিসে গেইলের উইকেট ছাড়াও শাহরিয়ার নাফিসকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান।

জবাবে খেলতে নামা সিলেট সিক্সার্স শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে। ২৫ রানে নেই ৩ উইকেট। গুনাথিলাকা, ফ্লেচারের পর পাকিস্তান থেকে উড়ে আসা বাবর আজমও হতাশ করেন দলকে। এরকম পরিস্থিতিতে সিলেটের হার সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। তবে সেই জায়গা থেকে দলকে জয়ের পথ দেখাতে শুরু করেন সাব্বির ও নাসির। দুজনই করেন ফিফটি। সিলেটকে নিয়ে যান জয়ের খুব কাছে। তবে শেষ পর্যন্ত যাওয়া হলো না। নাসির তো শেষ ওভারে ফিফটি করে ব্যাটটাও তুলতে পারলেন না! এতোদূরে এনেও দলকে জয়ের বন্দরে ভেড়াতে না পারলে কোন নাবিকই বা উল্লাস করতে পারেন!

২৪ বলে দরকার তখন ৩৫ রান। জিয়াউর রহমানের আগের ওভারেই ১০ রান নিয়েছেন নাসির হোসেন ও সাব্বির রহমান। মাশরাফি বিন মুর্তজা বোলিংয়ে এলেন, দিলেন মাত্র ২ রান। ম্যাচ ঘুরে গেল আসলে তখনই। মাশরাফির কাছ থেকে যেন প্রেরণা নিলেন পেরেরা-রুবেলরা। প্রথম দুই ওভারে পেরেরা দিয়েছিলেন ২৭ রান, তিনিই ১৭তম ওভার করতে এসে একটি উইকেটসহ দিলেন ৭ রান। পরের ওভারে রুবেলও দিলেন ওই ৭ রানই। ৩ ওভারে তারা দিলেন ২৫ রান, ৭ রানে ম্যাচ জিতে গেল রংপুর! সাব্বির ৪৯ বলে সাত বাউন্ডারীসহ ফিরে যাওয়ার আহগ করেন ৭০ রান।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর কার্ড :

রংপুর ১৬৯/৭, ২০ ওভার (গেইল ৫০, ম্যাককালাম ৩৩, বোপারা ২৮, আবুল ২/২৪, ব্রেসনান ১/২৩)
সিলেট ১৬২/৪, ২০ ওভার (সাব্বির ৭০, নাসির ৫০, মাশরাফি ১/১৮, রুবেল ১/৩০)
ফল : রংপুর ৭ রানে জয়ী

 

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর