জাতীয়



দেশদর্পণ ডেস্ক

২৭ নভেম্বর ২০১৭, ৮:৪৫ পূর্বাহ্ণ




সুযোগ হলে রোহিঙ্গা প্রতিনিধি দলের সঙ্গে কথা বলবেন পোপ

দেশদর্পণ ডেস্ক :: সোমবার সকালে রাজধানীর কাকরাইলে আর্চবিশপ হাউসে পোপের বাংলাদেশ সফর উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জানান ‘সুযোগ হলে কক্সবাজারে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা প্রতিনিধি দলের সঙ্গে কথা বলবেন পোপ ফ্রান্সিস বাংলাদেশের প্রথম কার্ডিনাল প্যাট্রিক ডি রোজারিও।

রোজারিও বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের কথা যাতে পোপের কাছে পৌঁছায় সে জন্য চেষ্টা করছে আর্চবিশপ হাউস। পোপ শান্তির বার্তা নিয়ে বাংলাদেশে আসবেন। দরিদ্র, সুবিধা বঞ্চিত, শরণার্থীদের পক্ষে কথা বলবেন।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে পোপের ভূমিকা প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘পোপের সফর অনেক আগে থেকেই নির্ধারিত। সে সময় পোপের সফরসূচি ছিল একদিনের। এমনকি তখন রোহিঙ্গা ইস্যুটি আলোচনায় ছিল না। যদি সময় থাকতো আমরা পোপকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাওয়ার অনুরোধ করতাম। কিন্তু সেটা সম্ভব হচ্ছে না। তাই আমরা সরকারের অনুমোদন ও সযোগিতায় রোহিঙ্গাদের একটি ছোট প্রতিনিধি দলকে ঢাকায় নিয়ে আসার চেষ্টা করছি। তাদের সঙ্গে কথা বলবেন পোপ।’

প্যাট্রিক ডি’রোজারিও বলেন, ‘আজ আমরা আনন্দিত ও উল্লসিত। ভ্যাটিকান সবসময় ন্যায় ও শান্তির পক্ষে অবস্থান নেয়, সহিংসতা ও যুদ্ধের পক্ষে থাকে না। মুক্তিযুদ্ধের সময় পোপ ষষ্ঠ পল তদানিন্তন পূর্ব পাকিস্তানে প্রতিনিধি দল পঠিয়েছিলেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতার কয়েক মাসের মধ্যেই দুজন প্রতিনিধি এসে স্বাধীন বাংলাদেশকে স্বীকৃতিও দিয়েছিলেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘পোপ ফ্রান্সিসের সফর দু’দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ। এটা তার রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে রাষ্ট্রীয় সফর এবং ক্যাথলিক চার্চের প্রধান ধর্মগুরু ও সর্বপ্রধান ধর্মপাল হিসেবে ধর্মীয় সফর। এতো বড় বড় দেশ থাকা সত্বেও পোপ ফ্রান্সিস সফরের জন্য বাংলাদেশকে বেছে নিয়েছেন।’

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পোপ ফ্রান্সিস আগামী ৩০ নভেম্বর বিকাল ৩টায় বাংলাদেশে পৌঁছাবেন। সফর শেষে আগামী ২ ডিসেম্বর বিকাল ৫টার দিকে তিনি রোমের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। এ সময়ের মধ্যে ৩০ নভেম্বর বিকালে তিনি সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে এবং ধানমন্ডিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। এছাড়া রাষ্ট্রপতিসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। ১ ও ২ ডিসেম্বর আর্চ বিশপ হাউস, তেজগাঁও কবরস্থান, পুরাতন গির্জা, তেজগাঁও মাদার তেরেসা ভবন পরিদর্শন এবং সোহওরার্দী উদ্যানে খ্রিস্টধর্মীয় উপসনা ও যাজক অভিষেক অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশে আসছেন পোপ।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- আর্চ বিশপ মোজেস এম কস্তা, বিশপ সেবাস্টিয়ান টুডু, বিশপ শরৎ ফ্রান্সিস, গমেজ, বিশপ সুব্রত হাওলদার, বিশপ রমেন বৈরাগী প্রমুখ।

বেআ/আবে

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর