সিলেট প্রতিক্ষণ



দেশদর্পণ ডেস্ক

১৩ নভেম্বর ২০১৭, ৮:৩০ পূর্বাহ্ণ




সিলেটে আবারও মাটি ধস : কিশোরী পাথর শ্রমিকের মৃত্যু, আহত ৩

দেশদর্পণ ডেস্ক :: পাথর তুলতে গিয়ে মাটি চাপায় ছয়জনের মৃত্যুর ছয়দিনের মাথায় আবারও মাটি চাপায় এক কিশোরীর মৃত্যু হলো। আহত হলেন ৩ জন।

আজ সোমবার সকাল আটটার দিকে জাফলংয়ের মন্দিরের জুম পাহাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম চম্পা রাণী দাস (১৮) নেত্রকোনা জেলার কালিয়াজুরি উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের রঞ্জিত দাসের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দেশের অন্যতম বৃহৎ পাথর কোয়ারী জাফলংয়ের মন্দিরের জুম পাহাড় এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করে আসছিল একটি চক্র। আজ সকালে পাথর শ্রমিকরা সেখানে পাথর উত্তোলনের সময় সকাল সাড়ে আটটার দিকে কালিবাড়ি মন্দিরের পাশের একটি টিলায় এ ঘটনা ঘটে। এতে মাটি চাপা পড়েন পাথর শ্রমিক চম্পা রাণী। মুহূর্ষ অবস্থা সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন জ্যোতি বিকাশ সরকার, দীপ্ত সরকার ও অজিত সরকার। তারা সকলে একই পরিবারের সদস্য। তাদের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায়।

এ ঘটনার পর থেকেই কোয়ারীর গর্তের মালিক আব্দুল সত্তার কবিরাজ পালাতক রয়েছেন। প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্থানীয় যুবলীগ নেতা নান্নু মিয়াকে আটক করেছে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ।

মাটি চাপায় নারী শ্রমিকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, ‘অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনের সময় টিলা ধ্বসে চম্পা রাণী দাস নামে এক শ্রমিক মারা গেছেন। তার বাড়ি নেত্রকোনায়। নিহতের ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ এখন সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের রাখা আছে।’ এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হলেও এখন পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ওই এলাকায় যাতে আর কোন লোক পাথর উত্তোলন করতে না পারে সেজন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে লাল পতাকা টানানো হয়েছে।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল, সহকারী কমিশনার ভূমি সুমন চন্দ্র দাস, পশ্চিম জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ও গোয়াইনঘাট থানার (ওসি তদন্ত) হিল্লোল রায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার কানাইঘাট উপজেলার লোভাছড়া নদীর তীরবর্তী মোলাগুল বাংলাটিলায় পাথর তুলতে গিয়ে মাটি চাপায় মারা যায় ছয় শিক্ষার্থী।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর