Ad Space
মাঠে ফেরা হচ্ছে না টাইগারদের

স্পোর্টস ডেস্ক :: সাধারণ ছুটি উঠিয়ে নেয়া দেখে কেউ কেউ হয়তো ভেবেছিলেন জনজীবনে স্বস্তি ফিরে আসতে যাচ্ছে। কিন্তু বাস্তব চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। বাংলাদেশে করোনা জেঁকে বসেছে প্রবলভাবে। আগের যেকোন সময়ের চেয়ে করোনার সংক্রমণ এখন অনেক বেশি।
এরকম সংকট ও উদ্বেগজনক অবস্থায় স্বল্প পরিসরে অফিস-আদালত খুললেও, দেশের খেলাধুলা বিশেষ করে ক্রিকেট কার্যক্রম চালুর চিন্তাও রীতিমত অলিক কল্পনা। এর মধ্যে একটি খবর শুনে ক্রিকেট ভক্তরা চমকে উঠেছেন। তা হলো, বিসিবি ক্রিকেটারদের সংস্পর্শ ছাড়া অনুশীলনের উদ্যোগ নিয়েছে। বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরীকে উদ্ধৃত করে এমন খবর প্রকাশিত হয়েছে।
এখন দেশে করোনার যারপরনাই খারাপ অবস্থা। প্রতিদিন গড়ে ২৫-৩০ প্রাণ ঝড়ে যাচ্ছে। আক্রান্তের সংখ্যাও উদ্বেগ জাগানিয়া।
এমন পরিস্থিতিতে খুব জরুরী দরকার ছাড়া ঘর থেকে বের হতে চান না কেউই। সেখানে হোক সংস্পর্শহীন মানে একা একা অনুশীলন, তারপরও এরকম সংকট ও কঠিন অবস্থায় জাতীয় দলের অনুশীলন কার্যক্রম! খটকা লাগার মত ব্যাপারই বটে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘এখনকার পরিবেশ-প্রেক্ষাপটে ক্রিকেটারদের নিজ নিজ বাসার বাইরে অন্য কোথাও কোনরকম ফিটনেস ট্রেনিং, জিম ওয়ার্ক, স্কিল ট্রেনিং করানো অসম্ভব। আমরা এখনই অমন চিন্তাও করছি না।’
তবে নান্নু যোগ করেন, ‘তবে ক্রিকেটারদের প্রস্তুত রাখার কথাও ভাবতে হচ্ছে আমাদের। মাথায় রাখতে হচ্ছে, তাদের শারীরিকভাবে ফিট রাখা অতি জরুরি। পাশাপাশি স্কিল ট্রেনিংটাও দরকার। কিন্তু সেটা নির্ভর করছে আসলে করোনা পরিস্থিতির ওপর। এখন যে ভয়াবহ অবস্থা, এর মধ্যে ট্রেনিং ক্যাম্প আয়োজনের প্রশ্নই আসে না, আমরা তা চিন্তাও করছি না। তবে অবস্থা ভাল হলে যাতে ক্রিকেটাররা দ্রুতই অনুশীলন শুরু করতে পারে- সে চিন্তা আছে আমাদের।’
সেটা কবে নাগাদ হতে পারে? এ প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচকের ব্যাখ্যা, ‘এটা পুরোপুরি করোনা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর কবে। এখন তো ঘর থেকেই বের হওয়া দায়। তাই আমরা অন্তত এই মাস দেখব, তারপর অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা।’