অফবিট



দেশদর্পণ ডেস্ক

২০ অক্টোবর ২০১৭, ৯:৩৫ অপরাহ্ণ




বোতলবন্দি চিঠি ৩৭ বছর পর ফেরত দিল সমুদ্র

দেশদর্পণ ডেস্ক :: সমুদ্র কিছু নেয় না। সে সব ফিরিয়ে দেয়। যেমনটা হল সাঁইত্রিশ বছরের মিরান্ডার সঙ্গে। তিন দশক আগে সমুদ্রের জলে ভাসিয়ে দেওয়া বোতল বন্দি বার্তার সন্ধান পেলেন এই মার্কিন নারী। তবে এতে জুড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার মাহাত্ম্য।

প্রায় তিন দশক আগে বোতলের মধ্যে একটি চিঠি গুঁজে তা সমুদ্রের জলে ভাসিয়ে দিয়েছিলেন মিরান্ডা সভেজ। সেদিন ছিল ১৯৮৮ সালের ২৬শে সেপ্টেম্বর। মিরান্ডা তখন তার বয়স আট বছর। জর্জিয়ার ইডিস্টো সমুদ্রতটে বেড়াতে গিয়েছিল সে। খেলার ছলে আপন মনে একটি কাগজে কিছু কথা লিখেছিল। এরপর সেই কাগজটি বোতলে ভরে ভাসিয়ে দিয়েছিল সাগরে।

বোতল বন্দি সেই বার্তায় সে লিখেছিল, আমার নাম মিরান্ডা ডন মুজ। আমার বয়স আট বছর। আমি তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ি। কাগজে বাড়ির ঠিকানাও দেওয়া ছিল। তবে এতদিন বোতল বন্দি থাকায় কাগজের লেখাগুলি অস্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।

আট বছরের মিরান্ডার বয়স আজ ৩৭ বছর। ছোট্টবেলার সেই ইডিস্টো সমুদ্রতটের স্মৃতি হয়তো এতদিনে ফিকে হয়ে গিয়েছিল তার। কিন্তু ছোটবেলার সেই স্মৃতি উস্কে একদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় সন্ধান পেলেন সেই কাগজের। কিভাবে?

২৯ বছর পর সেই সমুদ্রতটে স্বামীকে নিয়ে গিয়েছিলেন লিন্ডা হামফ্রিস। সেখানে গিয়ে মিরান্ডার ছোট্ট বয়সে লেখা কাগজটির সন্ধান পান। আর দেরি করেননি। বার্তা প্রেরকের সন্ধান পেতে সঙ্গে সঙ্গে ফেসবুকে কাগজটি পোষ্ট করলেন। মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় পোস্টটি। এই ভাবেই একদিন ফেসবুকে পোস্ট চোখে পড়ে যায় মিরান্ডার। ২৯ বছর আগে স্মৃতির কথা ফের মনে পড়ে যায় তার। নিজেই জানিয়েছেন, ছোটবেলার স্মৃতি আনন্দই দিয়ে যায়।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর