বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি



দেশদর্পণ ডেস্ক

৩ ডিসেম্বর ২০১৭, ৬:৫৪ পূর্বাহ্ণ




ফেসবুকের অ্যাপস ভেবে ফাদেঁ পা দিচ্ছেন না তো?

দেশদর্পণ ডেস্ক :: ‘আপনি দেখতে কোন সেলিব্রেটির মতো’, ‘আপনার স্ত্রী দেখতে কার মতো হবে’ কিংবা ‘আপনার ফেইসবুক প্রোফাইল কে লুকিয়ে লুকিয়ে দেখেন’ এরকম অসংখ্য অ্যাপ ফেসবুকে প্রায়ই আপনার চোখে পড়ে। ক্লিক করবেন না করবেন না করেও শেষপর্যন্ত আপনি কৌতুহলের কাছে পরাজিত হন। কেউ কেউ আবার সেই ফলাফল ফেসবুকে শেয়ারও দেন মজা করে। কিন্তু আপনি জানেন কি এগুলো তৃতীয় পক্ষের তৈরি অ্যাপস, ফেসবুকের নিজস্ব নয়। আপাত দৃষ্টিতে নিরিহ এই অ্যাপ ছড়িয়ে দেওয়ার পেছনে আছে অন্য উদ্দেশ্য।

এসব অ্যাপসে ক্লিক করেই জেনে যাবেন ভবিষ্যৎ! বিশ্বাস হচ্ছে না? তাহলে ক্লিক করে দেখুন https://goo.gl/UmLCZG ঠিকানায়। আপনার অনেক বন্ধুই ব্যবহার করছেন। ফেইসবুকের নিউজ ফিডে ভবিষ্যৎ সম্পর্কে তথ্যের যেসব লিংক বন্ধুরা শেয়ার করেন, তা এই অ্যাপ ব্যবহারেরই ফল।

আপনি যখন ‘বিয়ের পর ভবিষ্যৎ কেমন হবে’ জানতে আগ্রহী হয়ে অ্যাপটিতে ঢু মারবেন, তখন ওয়েবসাইটটিতে প্রথমে লেখা থাকবে—‘খেলাটি খেলতে এখানে ক্লিক করুন। ’ তারপর তাতে ক্লিক করলে ফেইসবুকে লগইন করতে বলা হবে। তারপর ফেইসবুক থেকে কিছু তথ্য দেখার অনুমতি চাইবে। অনুমতি দিলে কিছু সময় পর ফলাফল দেখাবে। ফলাফলটি বন্ধুদের সঙ্গে ফেইসবুকে শেয়ার করতেও প্রলুব্ধ করা হবে। একই নিয়মে https://goo.gl/5jZvNG লিংকে গিয়ে আপনি কোনো নেতার মতো তা দেখতে পারবেন। স্বর্গে যাবেন নাকি নরকে যাবেন তা জানা যাবে https://goo.gl/SYG55g লিংক থেকে।

আপনি যাকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন, তার নামের প্রথম অক্ষর জানতে যেতে হবে https://goo.gl/rN1Ns6-এ। আর আপনার স্ত্রী কেমন মানুষ হবে, তা জানতে পারবেন https://goo.gl/5HGE3o-এ গিয়ে। ফেইসবুকের জন্য এমন অনেক অ্যাপই তৈরি করছেন ডেভেলপাররা।

এসব তথ্য কতটা সত্যি : ফেইসবুকের অ্যাপ্লিকেশন থেকে পাওয়া তথ্যগুলো অনেকে নিছক মজা হিসেবে নিলেও সত্যি ভেবে বিশ্বাস করেন কেউ কেউ। আদতে এসব তথ্যের কোনো ভিত্তি নেই।

নির্মোহ নয় এসব অ্যাপ : অ্যাপগুলো তৈরি করার পেছনে বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য আছে। অ্যাপ্লিকেশনগুলো কেউ ক্লিক করলে ব্যবহারকারীর ফেইসবুক থেকে কিছু তথ্য নেওয়ার অনুমতি চাওয়া হয়। এর মধ্যে ফেইসবুক ইউজারের নাম, মেইল আইডি, মোবাইল নম্বর, ছবি, লাইক-শেয়ার, ফেইসবুক বন্ধুতালিকা, মেসেজ দেখার অনুমতি ইত্যাদি থাকে। কিছু অ্যাপ ফেইসবুকে আপ করা ব্যক্তিগত ছবি ব্যবহারেরও অনুমিত নেয়। এভাবে মজা দেওয়ার ছলে অ্যাপের ডেভেলপাররা আপনার ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেন। তথ্যগুলো নানা কাজে ব্যবহার করা হয়। বিক্রি করে দেওয়া হয় ফোন নম্বর ও ই-মেইল অ্যাড্রেসগুলো। অনলাইন বিজ্ঞাপনের মারফত পণ্যের প্রচারণায় ব্যবহার করা হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তথ্য বিক্রির পাশাপাশি অ্যাপগুলো ব্যবহারকারীর তথ্য বিশ্লেষণ করে হ্যাকিংয়ের অ্যালগরিদমে ব্যবহার করে।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা) শক্তিশালী করতে অসংখ্য ছবি প্রয়োজন হয়। এ অ্যাপগুলো থেকে পাওয়া ছবি দিয়ে এ কাজে ব্যবহার করা হয়। অনেকে পর্নোসাইটে বিকৃতভাবে ব্যবহারের মতো বিভিন্ন অনৈতিক উদ্দেশ্যেও ছবিগুলো ব্যবহার করে।

মুক্তি পেতে চাইলে : মজা করতে গিয়ে ‘বিপদ’ না বুঝেই অনেকে অ্যাপগুলো ব্যবহার শুরু করেছেন। অ্যাপগুলো দ্রুত রিমুভ করাই মঙ্গল। ডেস্কটপ ব্যবহারকারীরা https://www.facebook.com/ settings?tab=applications-এ গিয়ে নিষ্কৃতি পাবেন। লিংকটিতে ঢোকার পর অ্যাপের লিস্ট বা তালিকা দেখাবে। সেখান থেকে যে অ্যাপগুলো অপ্রয়োজনীয় বা ক্ষতিকর মনে হয় বা আপনি যে অ্যাপটি রিমুভ করতে চান, সেটির ডান পাশে ক্রস চিহ্নে ক্লিক করে রিমুভ করে দিতে পারবেন। মোবাইলে এ ধরনের অ্যাপ ব্যবহারকারীদের যেতে হবে https://m.facebook. com/privacy/touch/apps লিংকে। এখান থেকে অপ্রয়োজনীয় বা ক্ষতিকর অ্যাপে ক্লিক করতে হবে। তাহলে নতুন পেইজ আসবে। পেইজের শেষে অ্যাপটি রিমুভ করার অপশনে ক্লিক করে কনফার্ম করলেই অ্যাপটি রিমুভ হয়ে যাবে। কোন অ্যাপ কী কী তথ্য নিচ্ছে, তা অ্যাপটি চালুর সময়ই দেখানো হয়। তাই ফেইসবুকে অচেনা কোনো অ্যাপ ব্যবহার করার আগে দেখে নিতে হবে অ্যাপটি ব্যক্তিগত কোনো তথ্য নিচ্ছে কি না এবং নিরাপদ কি না।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর