লিড নিউজ, সিলেট প্রতিক্ষণ



রেদ্বওয়ান মাহমুদ

14 December 2020, 7:18 PM




পথে পথে পতাকা’র ফেরিওয়ালারা

কেউ সড়কের মোড়ে দাঁড়িয়ে, কেউ হাঁটছেন, আবার কেউ বাইসাইকেলের সঙ্গে স্ট্যান্ড বেঁধে তাতে লাগিয়ে রেখেছেন অসংখ্য পতাকা। লাল সবুজের পতাকা। সঙ্গে  বাঙালির মহান বিজয়ের চিহ্নসহ নানা লোগো আর স্লোগানখচিত অনুসঙ্গ। তাদের তাতে ধরা ছোট-বড় নানা আকারের জাতীয় পতাকা জানান দিচ্ছে বাঙালির অহংকারের বিজয় মাস চলছে, বিজয় দিবস দোরগোড়ায়।

গতকাল সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) নগরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে এমন দৃশ্য।

বিক্রেতারা জানিয়েছেন ডিসেম্বর এলেই বাড়ে পতাকার চাহিদা। বিজয়কে স্মরণ করতে মানুষ যানবাহন, বাড়িঘর কিংবা প্রতিষ্ঠানে পতাকা ব্যবহার করেন। বিভিন্ন আকারের পতাকা শোভা পায় সর্বত্র। তাই সারা বছর অন্য পেশায় নিয়োজিত থাকলেও বিভিন্ন জাতীয় দিবসে অনেকে বাড়তি লাভের আশায় নেমে পড়েন পতাকা বিক্রিতে।

সিলেট নগরের বন্দবাজায় এলাকায় চোখে মুখে ক্লান্তির ছাপ নিয়ে ছুটে ফেরা এক পতাকার ফেরিওয়ালা আকরাম আলী। তিনি দেশদর্পণের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ‘সারা বছরই পত্রিকা বিক্রি করে সংসার চালাই। মার্চ-ডিসেম্বরে পত্রিকার পাশাপাশি পতাকা বিক্রি করি।’ পতাকার সঙ্গে স্ট্যান্ডও রাখতে হয় বলে ওজন অনেকখানি বেড়ে যায়। তা বহন করা কিছুটা কষ্ট সাধ্য জানিয়ে আকরাম বলেন, ‘তবে লাল-সবুজ পতাকা যখন বাতাসে উড়ে, তখন আর কষ্টের কথা মনে থাকে না।’

তিনি জানান,  ‘আকৃতি ও মান ভেদে বিভিন্ন দামে বিক্রি হয় পতাকা। ৫ টাকা থেকে শুরু করে রয়েছে ৫০০ টাকা পর্যন্ত ।’
পতাকা কিনতে আসা এক ক্রেতা জানান, ‘প্রত্যেক বছর বিজয় দিবসে আমি সন্তানদের পতাকা কিনে দেই। বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে পতাকা মাথায় বেঁধে স্কুলে যেতে ছেলে-মেয়েরা বায়না ধরে। তবে এ বছর করোনার কারণে স্কুলে যেতে না পারলেও বাসায় সবাইকে নিয়ে বিজয় উদযাপন করব।’

 

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর