জাতীয়, দেশজুড়ে



দেশদর্পণ ডেস্ক

১২ নভেম্বর ২০১৭, ৯:০৬ অপরাহ্ণ




দাকোপে আবারও কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা, এবারও দায়ী ছাত্রলীগ নেতা

দেশদর্পণ ডেস্ক :: খুলনার দাকোপ উপজেলায় কলেজছাত্রী জয়ী মণ্ডলের আত্মহত্যার রেশ কাটতে না কাটতে এক সপ্তাহের মধ্যে বন্যা রায় নামে আরেক কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা করেছেন। এবারও অভিযোগের তীর ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। রোববার (১২ নভেম্বর) এ ঘটনা প্রকাশ্য আসে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করেছেন নিহতের বাবা।

মামলার বিবরণে নিহতের বাবা উল্লেখ করেছেন, তার বড় মেয়ে বন্যা রায় ছিলেন এসএন ডিগ্রী কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। কলেজ সংলগ্ন অভিদের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন তিনি। বন্ধু ছাত্রলীগ নেতা স্বর্ণদ্বীপের সঙ্গে বন্যার সম্পর্ক স্থাপনে সহায়তা করেন অভি। কিছুদিন পর তাদের ছাড়াছাড়ি হয়। এ সুযোগে অভি তার বোন প্রিয়াংকা ও বন্ধু উজ্জ্বলের সহায়তায় বন্যার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন। কিছুদিন পর অন্য জায়গায় বাসা ভাড়া নেন বন্যা। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে তার সঙ্গে সম্পর্কের পাট চুকিয়ে ফেলেন অভি। এরপর স্বর্ণদ্বীপ এবং সে মিলে নানাভাবে বন্যাকে মানসিক চাপ দিতে থাক। গত ২৭ অক্টোবর বন্যা অভিদের বাড়ি গেলে তাকে লাঞ্ছিত করেন অভি ও স্বর্ণদ্বীপ। এরপর বাড়ি ফিরে এলে অভিজিৎ মোবাইল ফোনে তাকে কূটুক্তি করেন এবং আত্মহত্যায় প্ররোচিত করেন। এ আচরণ সহ্য করতে না পেরে ওইদিন দুপুরে বন্যা ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেন।

পরে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। ময়নাতদন্ত শেষে বন্যা রায়ের অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

এ ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক স্বর্ণদীপ জোয়াদ্দারসহ দুইজনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। প্রধান আসামি অভিজিৎ অভিকে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে দাকোপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাবুদ্দিন চৌধুরী জানান, গত ২৭ অক্টোবর নিজের বাড়িতে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় বাজুয়া এসএন ডিগ্রী কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী বন্যা রায়ের লাশ। ময়নাতদন্তে দেখা গেছে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

তিনি আরও জানান, আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে বন্যার বাবা বাদী হয়ে গত ৯ নভেম্বর দাকোপ থানায় একটি মামলা করেন। এতে আসামি করা হয় দাকোপ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক স্বর্ণদীপ জোয়াদ্দার ও তার বন্ধু বাজুয়া গ্রামের রবীন্দ্রনাথের পুত্র অভিজিৎ অভিকে। মামলার প্রধান আসামি অভিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামিকে ধরতে অভিযান চলছে।

এর আগে গত ৫ নভেম্বর দাকোপে বাজুয়া এসএন ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইনজামামের বিরুদ্ধে ছাত্রী জয়ী মণ্ডলকে আত্মহত্যায় প্ররোচিত করার অভিযোগে মামলা হয়। এ ঘটনায় আসামিকে গ্রেপ্তারের দাবিতে নানা প্রতিবাদ কর্মসূচিও পালিত হয়েছে। আত্মগোপনে থাকা ইনজামাম রোববার (১২ নভেম্বর) খুলনায় আদালতে এসে আত্মসমর্পণ করে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর