খেলাধুলা



দেশদর্পণ ডেস্ক

২২ মার্চ ২০১৮, ৮:৩৪ অপরাহ্ণ




‘টি-টোয়েন্টিতে এখন সামনে এগিয়ে যাওয়ার সময়’

দেশদর্পণ ক্রীড়া :: নিদাহাস ট্রফির শিরোপার কাছাকাছি গিয়ে ব্যার্থ হলেও এই ত্রিদেশীয় সিরিজে যেভাবে পারফর্ম করেছে টাইগাররা, তাতে টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে নতুন দিনের শুরুই দেখতে পাচ্ছেন খালেদ মাহমুদ সুজন।

শ্রীলঙ্কা সফরে দলের ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেছেন সাবেক এই ক্রিকেটার। বাংলাদেশের সাফল্য খুব কাছ থেকে দেখেছেন বলে তিনি ভীষণ আশাবাদী। সুজন বলেছেন, ‘টি-টোয়েন্টি এখনও আমাদের কাছে নতুন কনসেপ্ট। আমরা এখনও শিখছি। তবে শেষ টুর্নামেন্টটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অঘোষিত সেমিফাইনালে মাহমুদউল্লাহর ছক্কায় ১ বল আগে জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। ফাইনালে তো সাকিবদের জয়ের পাল্লাই ছিল ভারি। ২ ওভারে জেতার জন্য ভারতের দরকার ছিল ৩৪ রান। কঠিন এই সমীকরণও শেষ বলে মিলে যায় তাদের দিনেশ কার্তিকের অবিশ্বাস্য ব্যাটিংয়ে। নিশ্চিত জিততে যাওয়া ম্যাচ হাত ফসকে বেরিয়ে গেলেও নিদাহাস ট্রফির পারফরম্যান্স আশা জোগাচ্ছে সুজনকে।

বিসিবি পরিচালক বলেছেন, ‘আমরা যে ভাবভঙ্গি নিয়ে খেলেছি, তাতে আমি মনে করে এই ধারাটা সামনেও রাখতে পারব। আমার বিশ্বাস এখান থেকে আমরা আর পেছনে তাকাব না টি-টোয়েন্টিতে। এখন শুধু সামনে এগিয়ে যাব।’

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে দারুণ ফর্মে আছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ম্যাচ পাতানোর দায়ে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে খেলে চলেছেন সাবেক এই অধিনায়ক। এবারের প্রিমিয়ার ডিভিশনে এখন পর্যন্ত করেছেন তিনটি সেঞ্চুরি। আশরাফুল সম্পর্কে সুজনের বক্তব্য, ‘ওর খেলা দেখিনি, শুনেছি। আশরাফুল নিঃসন্দেহে অনেক বড় খেলোয়াড়। বাংলাদেশের প্রথম সুপারস্টার বলতে হলে আশরাফুলের কথাই বলতে হয়।’

এই ব্যাটসম্যানের প্রশংসার সঙ্গে সুজন এটাও মনে করিয়ে দিয়েছেন, ‘কিন্ত তিনটি সেঞ্চুরি হলেও আশরাফুলের ধারাবাহিকতা ছিল না। তিন সেঞ্চুরির পর লিগের সর্বোচ্চ রান হওয়ার কথা ছিল, যদিও সেটা হয়নি। রান তোলায় দিকে সম্ভবত ১১-১২-এর দিকে আছে। তারপরও এতদিন পর খেলায় ফিরে যে রান করছে, সেটাই গুরুত্বপূর্ণ।’

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর