বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি



দেশদর্পণ ডেস্ক

৪ মার্চ ২০১৮, ১০:০১ পূর্বাহ্ণ




চাঁদেও বসছে মোবাইল টাওয়ার!

দেশদর্পণ ডেস্ক :: পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ চাঁদে এবার বসতে যাচ্ছে মোবাইল টাওয়ার! হ্যাঁ এমনটাই ঘোষণা দিয়েছে এই কাজের উদ্যোক্তা ভোডাফোন জার্মানি। আর এ কাজে তারা সঙ্গে নিয়েছে নেটওয়ার্ক সামগ্রী নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নোকিয়া ও গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অডিকে।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি ভোডাফোন জার্মানি, নোকিয়া ও অডি এক বিবৃতিতে চাঁদে মোবাইল টাওয়ার বসানোর কথা জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়, বেসরকারিভাবে পরিচালতি প্রথম চন্দ্রাভিযানে সহায়তার অংশ হিসেবেই এ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজে হাত দিয়েছেন তারা।

বিৃবতিতে আরও বলা হয়, চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে খুব ভালো মানের ভিডিও চিত্র (হাই-ডেফিনিশন বা এইচডি) সরাসরি পৃথিবীতে পাঠানোর কাজে ওই মোবাইল টাওয়ার ব্যবহার করা হবে।

ভোডাফোন কর্তৃপক্ষ জানায়, এই প্রকল্পে প্রযুক্তিগত সব ধরনের সহায়তা দেবে নোকিয়া। এর অংশ হিসেবে নোকিয়া মহাকাশ-বান্ধব এমন একটি ছোট নেটওয়ার্ক যন্ত্র বা ডিভাইস তৈরি করবে যার ওজন হবে এক ব্যাগ চিনির চেয়েও কম।

চাঁদে মোবাইল টাওয়ার বসানোর কাজে ভোডাফোন, নকিয়া ও অডি যৌথভাবে কাজ করবে বার্লিন-ভিত্তিক কোম্পানি পিটিএসসায়েন্টিস-এর সঙ্গে।

ভোডাফোন কর্তৃপক্ষ আরও জানায়, আগামী বছরই কেপ ক্যানাভেরাল থেকে ইলন মাস্কের কোম্পানি ‘স্পেস এক্স’-এর ‘ফ্যালকন ৯’ রকেটে চাপিয়ে চাঁদে প্রথমবারের মতো পাঠানো হবে মোবাইল টাওয়ার। স্পেস এক্সের উদ্যোগে সেটাই হতে যাচ্ছে বিশ্বের প্রথম বেসরকারি চন্দ্রাভিযান।

অভিনব এই প্রজেক্ট নিয়ে ভোডাফোন জার্মানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তঅ হান্স আমেটস্ট্রেটার বলেন, ‘মোবাইল নেটওয়ার্ক প্রযুক্তির উন্নতিতে আমাদের এই প্রকল্প সাহায্য করবে বলে আমরা আশাবাদী। চন্দ্রপৃষ্ঠের উন্নতমানের ভিডিও চিত্র সরাসরি পৃথিবীতে পাঠানোর কাজেই মূলত মোবাইল টাওয়ারটি ব্যবহৃত হবে।।’

এদিকে ভোডাফোনের আরেক নির্বাহী জানিয়েছেন, চাঁদে ফোরজি নেটওয়ার্ক বসাবেন তারা। এক্ষেত্রে ফাইভজি নেটওয়ার্ক না বসানোর কারণ হিসেবে তিনি জানান, পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্ক বা ফাইভজি এখনও পরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে এবং মহাকাশে এটি ঠিকঠাক কাজ করবে কি-না তা এখনও নিশ্চিত নয়।

বেআ/আবে

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর