সিলেট প্রতিক্ষণ



দেশদর্পণ ডেস্ক

২৬ নভেম্বর ২০১৭, ২:২৮ অপরাহ্ণ




ক্যান্সার রোগীদের জন্য কেমোথেরাপী সেন্টার চালু করছে সিসিক

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটে ক্যান্সার রোগের প্রাদুর্ভাব বাড়ছে। তাই রোগীদের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে সিলেটে একটি ডে-কেয়ার কেমোথেরাপী সেন্টার স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে নগর সংস্থা। সিলেটে সফররত ভারতীয় চিকিৎসকদের সাথে মতবিনিময় সভায় এ তথ্য জানিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

গত শনিবার (২৫ নভেম্বর) রাতে সিলেটের একটি অভিজাত হোটেলে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ভারত-বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে ক্যান্সার রোগের সার্বিক অবস্থার উপর একটি তথ্যচিত্রও উপস্থাপন করা হয়।

মেডিক্যাল ট্যুরিজম প্রতিষ্ঠান ডিএমটি গ্লোবাল সার্ভিসের পরিচালক কাওসার আহমদ আবদুসের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় মেয়র ছাড়াও বক্তব্য দেন এইচসিজি’র ভাইস চেয়ারম্যান যোগেন্দ্র রাওয়াত, ভারতের খ্যাতিমান ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ (অনকোলজিস্ট) ডা. জি অমরনাথ, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবির, সিলেট জেলা বারের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট শামসুল ইসলাম প্রমুখ।

সভায় মেয়র আরিফুল হক বলেন, সিলেট নগরসহ বৃহত্তর সিলেটে ক্যান্সার রোগের প্রাদুর্ভাব অনেক। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই জটিল এ রোগে আক্রান্তদের দীর্ঘ মেয়াদে ক্যামোথেরাপী নিতে হয়। ঢাকায় কিংবা দেশের বাইরে দীর্ঘদিন অবস্থান করে ক্যামোথেরাপি নেওয়া অনেকের জন্য সম্ভবপর হয়ে উঠে না। সেই চিন্তা থেকে আমাদের সিটি করপোরেশন একটি ডে-কেয়ার ক্যামোথেরাপী সেন্টার চালুর উদ্যোগ নিয়েছে।

প্রাথমিকভাবে নগরের কুমারপাড়ায় সিটি করপোরেশনের নির্ধাণাধীন একটি বহুতল ভবনে এ সেন্টার চালুর সম্ভাব্যতা যাচাই করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, এই সেন্টার চালু ও পরিচালনার জন্য কারিগরি সহায়তা দিতে সম্মত হয়েছে ভারতের ব্যাঙ্গালোরভিত্তিক বিশেষায়িত ক্যান্সার হাসপাতাল হেলথ কেয়ার গ্লোবাল এন্টারপ্রাইজ (এইচসিজি)।

সভায় এইচসিজি হাসপাতালের ভাইস চেয়ারম্যান যোগেন্দ্র রাওয়াত জানান, হেলথ কেয়ার গ্লোবাল এন্টারপ্রাইজ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ২৮টি ক্যান্সার হাসপাতাল পরিচালনা করে। ভারত ছাড়াও আফ্রিকার কেনিয়ায় একটি ক্যান্সার হাসপাতাল পরিচালনা করছে তারা। বাংলাদেশেও নিজেদের সেবামূলক কার্যক্রম সম্প্রসারণের আগ্রহের কথা জানিয়ে যোগেন্দ্র রাওয়াত বলেন, সিলেটে প্রাথমিকভাবে এই ডে-কেয়ার ক্যামোথেরাপী সেন্টার চালু করতে যাচ্ছে এইচসিজি। এটি চালু হলে রোগীরা অনেক সাশ্রয়ে ক্যান্সার রোগের চিকিৎসাসেবা নিতে পারবেন।

পরে ডে-কেয়ার ক্যামোথেরাপী সেন্টারের জন্য সিটি করপোরেশনের প্রস্তাবিত জায়গা পরিদর্শন করেন তারা।

 

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর