বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, লিড নিউজ



দেশদর্পণ ডেস্ক

17 December 2020, 3:28 AM




ইউরোপের ২৭ দেশে একদিনে করোনার টিকা

ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত ২৭ দেশে একদিনে করোনাভাইরাসের টিকাদান শুরু হবে বলে জানিয়েছেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান উরসুলা ভন ডের লেয়েন। গতকাল বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) ইউরোপীয় পার্লামেন্টে ভাষণে তিনি এ তথ্য জানান। এদিকে মডার্নার তৈরি কভিড টিকাকে অত্যন্ত কার্যকর বলে মন্তব্য করে এটিকে জনসাধারণের ওপর প্রয়োগের অনুমতি দিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ।

ইইউর সাবেক সদস্য যুক্তরাজ্যে করোনার টিকাদান কয়েক দিন আগে শুরু হলেও এখনও এটির গণপ্রয়োগ শুরু হয়নি ২৭ দেশভুক্ত জোটের কোনো দেশে। এ নিয়ে চাপে আছে ইইউ। গতকাল এমইপিদের উদ্দেশে ভাষণে উরসুলা বলেন, মহামারি শেষ করতে হলে জনসংখ্যার ৭০ ভাগকে টিকা দিতে হবে। এটা একটা বিরাট কাজ। কাজেই আসুন সবাই এক দিনে টিকাদান শুরু করি।

ইউরোপীয় ওষুধ সংস্থা (এমা) এখনও কোনো টিকা অনুমোদন করেনি। এ নিয়ে বৈঠক এক সপ্তাহ এগিয়ে এনে আগামী সোমবার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থাটি। এদিন ফাইজার ও বায়োএনটেকের টিকা অনুমোদন দেওয়া হতে পারে। ফলে বড়দিনের আগেই টিকাটি প্রয়োগ শুরু হতে পারে। এ টিকা ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি দেশে অনুমোদন এবং যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় প্রয়োগ শুরু হয়েছে। এমা জানিয়েছে, ২১ ডিসেম্বর থেকে ইইউভুক্ত দেশে ফাইজারের টিকা দেওয়া শুরু হবে।

উরসুলা বলেন, ইইউ ফাইজারসহ ছয়টি কোম্পানির টিকা কেনার চুক্তি করেছে। এটি অনুমোদন হলেই প্রয়োগ শুরু হবে। ইউরোপের প্রতিটি মানুষের প্রয়োজনের অতিরিক্ত টিকা কেনা হয়েছে বলে জানান তিনি।

অনুমোদন পাচ্ছে মডার্নার টিকাও :যুক্তরাষ্ট্রে এবার অনুমোদন পাচ্ছে কভিড-১৯-এর দ্বিতীয় টিকা। যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি মডার্নার টিকা নিরাপদ এবং ৯৪% কার্যকর বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। আর এতেই জরুরি ব্যবহারের জন্য এই টিকা অনুমোদন পাওয়ার পথ সুগম হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) মডার্নার টিকা বিশ্নেষণ করে মঙ্গলবার সকালেই এর বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, এই টিকার নিরাপত্তা নিয়ে কোনো উদ্বেগ নেই এবং এর মারাত্মক কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়নি।

ফলে যুক্তরাষ্ট্রে ফাইজার-বায়োএনটেকের কভিড-১৯ টিকার প্রয়োগ শুরু হওয়ার পর এবার কয়েকদিনের মধ্যেই মডার্নাও অনুমোদন পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এফডিএ এ সপ্তাহ শেষে টিকাটি অনুমোদন করলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই এর চালান শুরু হতে পারে। এফডিএ বলছে, ৩০ হাজার মানুষের ওপর পরীক্ষায় মডার্নার টিকা ৯৪.১ শতাংশ কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে।

ফাইজার ও মডার্না মিলে যুক্তরাষ্ট্র সরকার আগামী বছরেই পেয়ে যেতে পারে ১০০ কোটি ডোজেরও বেশি কভিড টিকা। দুটো টিকার মধ্যে বড় ধরনের ফারাক হচ্ছে সংরক্ষণের পদ্ধতিতে। ফাইজারের টিকা সংরক্ষণ করাটা বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ। সেদিক থেকে মডার্নার টিকা সংরক্ষণ তুলনামূলক সুবিধাজনক।

ফাইজারের টিকা মাইনাস ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে সংরক্ষণ করতে হয়। সাধারণ রেফ্রিজারেটরের তাপমাত্রায় এটি রাখা যাবে মাত্র পাঁচ দিন। অন্যদিকে মডার্নার টিকা সাধারণ রেফ্রিজারেটরের তাপমাত্রায় (মাইনাস ২ থেকে মাইনাস ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) ৩০ দিন সংরক্ষণ করা যাবে। আর মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে রাখা যাবে ছয় মাস। ফলে মডার্নার টিকা বিতরণ করা তুলনামূলকভাবে সহজ হবে।

বিহারে বিনামূল্যে সবার জন্য টিকার প্রস্তাব :ভারতের বিহার রাজ্যে সবার জন্য বিনামূল্যে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে নীতিশ কুমারের সরকার। মঙ্গলবার রাজ্য সরকারের মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকে বিনামূল্যে করোনার টিকা দেওয়ার প্রস্তাবটি অনুমোদন পায়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার।

বিহারে ক্ষমতায় রয়েছে এনডিএ জোট। এই জোটে আছে নীতিশ কুমারের জনতা দল সংযুক্ত (জেডি-ইউ) ও বিজেপি। বিনামূল্যে করোনার টিকা দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদনের মাধ্যমে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণের দিকে নীতিশ কুমারের সরকার এক ধাপ এগিয়ে গেল। বিনামূল্যে করোনার টিকা দেওয়ার বিষয়টি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল এনডিএ জোটের।

চীনও কিনল ফাইজারের টিকা :চীনের শীর্ষস্থানীয় স্বাস্থ্যসেবা কোম্পানি ফোসান ফার্মা ফাইজারের তৈরি টিকার ১০ কোটি ডোজ কেনার চুক্তি করেছে। এটা চীনের অভ্যন্তরে বিতরণ করা হবে। গতকাল ফোসান জানায়, কর্তৃপক্ষের অনুমোদন সাপেক্ষে এ টিকা দেওয়া হবে। চীনের বিভিন্ন কোম্পানির তৈরি চারটি টিকা চূড়ান্ত ধাপের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

সৌদিতে পৌঁছল ফাইজারের টিকা :সৌদি আরব করোনাভাইরাসের প্রথম টিকা হাতে পেয়েছে। ফাইজারের টিকার প্রথম চালান গতকাল সকালে দেশটিতে পৌঁছেছে। দেশটিতে এক লাখের বেশি লোক টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন। গত সপ্তাহে সৌদি কর্তৃপক্ষ এ টিকা অনুমোদন দেয়। এ টিকা বিনামূল্যে দেওয়া হবে। অগ্রাধিকার পাবেন ৬৫ বছরের বেশি বয়সীরা।

ইন্দোনেশিয়ায় টিকা বিনামূল্যে :দেশটির প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো বলেছেন, জনগণকে বিনামূল্যে করোনার টিকা দেওয়া হবে। কারও টিকা না পাওয়ার কোনো কারণ নেই। ইন্দোনেশিয়া কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যেই চীনের সিনোফার্মের তৈরি ১২ লাখ টিকা গ্রহণ করেছে। আগামী মাসে আরও ১৮ লাখ টিকা পাবে দেশটি। খবর এএফপি, বিবিসি ও এনডিটিভির।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর