জাতীয়



দেশদর্পণ ডেস্ক

১ মার্চ ২০১৮, ১:৪৫ অপরাহ্ণ




আজ থেকে হজ নিবন্ধন শুরু, চলবে ১১ মার্চ পর্যন্ত

দেশদর্পণ ডেস্ক :: এ বছর হজে যেতে আগ্রহীদের জন্য আজ বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) থেকে নিবন্ধন শুরু হয়েছে। আগামী ১১ মার্চ পর্যন্ত এই নিবন্ধন কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। তিনি আরও জানান, আগামী ১৪ জুলাই বাংলাদেশ থেকে প্রথম হজ ফ্লাইট সৌদি আরবের পথে রওনা দেবে।

আজ বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ধর্মমন্ত্রী এসব তথ্য জানান। এসময় তিনি হজ নীতি ও মন্ত্রিপরিষদে অনুমোদিত এ বছরের হজ প্যাকেজের বিভিন্ন তথ্য এবং গত বছর হজ এজেন্সিগুলোর বিভিন্ন অনিয়মের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের বিরুদ্ধে গৃহীত ব্যবস্থার তথ্যও তুলে ধরেন। ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, হজযাত্রীরা যেকোনও ধরনের অভিযোগ জানাতে ০৯৬০২৬৬৬৭০৭ নম্বরে কল করতে বলা হয়।

ব্রিফিংয়ে ধর্মমন্ত্রী জানান, এ বছর বাংলাদেশ থেকে মোট এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজযাত্রী হজে যাবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যাবেন ৭ হাজার ১৯৮ জন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ১ লাখ ২০ হাজার জন। নির্দিষ্ট আকার ও জাতীয় পতাকাখচিত পলিব্যাগ ও কিটব্যাগ হজযাত্রীদের নিজ নিজ ব্যবস্থাপনায় কিনতে হবে বলেও জানান তিনি।

এসময় জানানো হয়, নিবন্ধন ছাড়া কোনও হজযাত্রীকে প্রতিস্থাপন করা যাবে না। এ ছাড়া, হজযাত্রীদের কোনও ধরনের পুলিশ ভেরিফিকেশনও লাগবে না।

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, সরকারি ব্যবস্থাপনায় দু’টি প্যাকেজ আছে। প্যাকেজ ১-এর জন্য দিতে হবে তিন লাখ ৯৭ হাজার ৯২৯ টাকা। আর প্যাকেজ ২-এর জন্য লাগবে তিন লাখ ৩১ হাজার ৩৫৯ টাকা। এর মধ্যে বিমান ভাড়া এক লাখ ৩৮ হাজার ১৯১ টাকা।

এদিকে, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ প্যাকেজে বিমান ভাড়া হবে এক লাখ ৬৮ হাজার ২৭৭ টাকা। এর সঙ্গে বাড়ি ভাড়াসহ অন্যান্য যাবতীয় ব্যয় হজ এজেন্সিগুলো যেভাবে সার্ভিস দেবে সেভাবে সমন্বয় করে যুক্ত করবে।

এদিকে, ২০১৭ সালের হজ কার্যক্রমে অংশ নেওয়া ৬৪টি হজ এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে ও জরিমানা করা হয়েছে। আরও ১৭টি এজেন্সির লাইসেন্স স্থগিত করা হয়েছে। এর বাইরে ১১২টি হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে বিভিন্ন মাত্রায় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান জানান, ২০১৭ সালে হজ কার্যক্রমে অংশ নেওয়া ১৯৩টি এজেন্সির বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ও সৌদি আরব পর্বে বিভিন্ন অভিযোগ ওঠে। এসব অভিযোগের সত্যতা যাচাই-বাছাই করতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কমিটির সুপারিশ পর্যালোচনা করে ৬৪টি হজ এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে ও জরিমানা করা হয়েছে। ১৭টি এজেন্সির লাইসেন্স স্থগিত করা হয়েছে। এর বাইরে ৪৯টি এজেন্সিকে জরিমানা, তিরস্কার ও সতর্ক করা হয়েছে এবং ১২টি হজ এজেন্সিকে সতর্ক করা হয়েছে। আরও ৫১টি হজ এজেন্সিকে হজযাত্রী পাঠানোর কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

বেআ/আবে

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর